ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলায় সময় টিভি সাংবাদিকের জামিন

নোয়াখালী টিভি : রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে জামিন মঞ্জুর করেন সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস সামস জগলুল হোসেন। তানভীর হাসানের পক্ষে শুনানিতে অংশগ্রহণ করেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া।

তিনি বলেন, ফেসবুক পোস্ট দেওয়ার প্রায় ৭ মাস পর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাশ হয়। বাদি পক্ষ যদি কোনো কারণে ক্ষুব্ধ হয়েও থাকে সেটা এই আইনের আওতায় পড়ে না। কারণ সেটা ২০০৬ সালের আইনের মধ্যে পড়ে। তাছাড়া মামলার আরো অনেক তথ্য ও প্রসেসিংয়ে গড়মিল আছে। এসব বিষয়গুলো বিবেচনা করে আদালত আসামিকে জামিন দিয়েছেন। 

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৮ সালে মামলার বাদী মিনহাজ আল দীনের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন সাংবাদিক তানভীর হাসান। যার প্রেক্ষিতে ২০২০ সালে মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলাটির প্রাথমিক তদন্তে তানভীর হাসানকে দ্বিতীয় আসামি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আর প্রথম আসামি করা হয় মডেল ও অভিনেতা নীরব ইসলামকে।

মামলা প্রসঙ্গে তানভীরের বাবা মো. আব্দুর রশীদ বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহার করে আমার ছেলের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। সে যখন ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয় তার প্রায় ৭ মাস পর এই আইন পাস হয়েছে। তাছাড়া যিনি মামলা করেছেন তিনি নাটক বানানোর নামে আমার ছেলের থেকে ২০১৬ সালে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা নিয়েছিলেন। 

তিনি বলেন, সে নাটকতো বানায়ইনি, উল্টো ২০২০ সালে জার্মানি যাবার আগে এভাবে মামলা করে দিয়ে গেছে। তার কাছে আমরা টাকা পাই। ওই টাকার স্ট্যাম্প এখনো আমাদের কাছে বিদ্যমান। তিনি দেশে থেকে মামলা না লড়ে মামলা দিয়ে বিদেশ চলে গেছেন, এতেই বোঝা যায় এটি একটি সাজানো ও শত্রুতামূলক মামলা।

তানভীর হাসান বর্তমানে সময় টিভির স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত আছেন। এর আগে তিনি চ্যানেল নাইন ও দেশ টিভিতেও সাংবাদিক হিসেবে পেশাগত দায়িত্ব পালন করেছেন। সাংবাদিকতার পাশাপাশি তিনি বেশ কিছু টিভি নাটকে অভিনয় ও বিজ্ঞাপনের জিংগেলে কণ্ঠ দিয়েছেন।

পাঠকের মন্তব্য